রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:১১ পূর্বাহ্ন

কানাইঘাটে সম্পত্তির লোভে আপন ভাতিজাকে মানসিক রোগী করে রেখেছেন চাচা-সিলেট সীমান্ত

সুয়েব আহমদ -সীমান্ত ডেস্কঃ
কানাইঘাট উপজেলাধীন ৩নং দিঘীরপার পূর্ব ইউপির লন্তিরমাটি গ্রামের
আব্দুল হাফিজ এর পুত্র মোঃকামরান আহমদ কে তারই চাচা হাজী হাঃ মোঃ আব্দুল কাদির ঝাড়ফুক করে মানসিক ভারসাম্যহীন করে রেখেছেন।
এ ব্যাপারে দৈনিক সিলেট সীমান্ত টিম ভুক্তভোগীর বাবার সাথে কথা বললে তিনি জানান,প্রায় ৬ বছর আগে প্রথমবার তার ছেলেকে মানষিক ভারসাম্যহীন করেন তারই সৎ ভাই আব্দুল কাদির। তার ছেলেকে নিয়ে তিনি বিভিন্ন কবিরাজের কাছে দৌড়-ঝাপ করলেও কোনো ফল পাননি।এক পর্যায়ে তার সৎ ভাই আব্দুল কাদির জানান যে, তাকে সাড়ে আট হাজার টাকা দিলে তিনি কামরান কে ভালো করে দিবেন এবং ভালো করে দেনও। এর পর থেকেই শুরু হয় ধারাবাহিক নির্যাতন। কামরান কে দফায় দফায় মানসিক ভারসাম্যহীন করে এই ছয় বছরে প্রায় এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। এখন আবার তাকে মানষিক ভারসাম্যহীন করে একটি গরু ও চার লক্ষ টাকা দাবি করেছেন তিনি।ভুক্তভোগীর পরিবার দিতে অসম্মতি জানালে, আব্দুল কাদির ও তার পরিবার নানা ভাবে হুমকি-দামকি দিচ্ছেন তাদের। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, আব্দুল কাদির একজন পেশাদার কবিরাজ, “কোকোপন্ডিতি” বিদ্যার মাধ্যমে নানা ধরনের কুফরি -কালোযাদু করে থাকেন তিনি।
এব্যাপারে ভুক্তভোগীর বাবা আব্দুল হাফিজ কানাইঘাট থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেছেন।
সিলেট সীমান্তের প্রতিনিধি দল কানাইঘাট থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে এ বিষয়ে কথা বললে, তিনি বলেন আমরা এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়রি পেয়েছি,শীঘ্রই ভুক্তভোগীর পরিবারকে আইনি সহায়তা দেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

  • © All rights reserved © 2021 sylhetshimanto.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com